Call us 01533-139728

Your Basket

Checkout | Shopping Cart
ইলেকট্রিক দই মেকার
ইলেকট্রিক দই মেকার

ইলেকট্রিক দই মেকার

Price:
750Tk.
Num added to cart:
0
In category:
Description:

মিষ্টান্ন বা নিয়মিত খাবার হিসেবে দই বা দধির কোনও জুড়ি নেই। দই হচ্ছে পুষ্টির ভাণ্ডার এবং এতে রয়েছে বহুমুখী উপকারিতা। তাই প্রতিদিনের খাবার তালিকায় দই হতে পারে একটি সুষম খাবার। দইয়ে আছে প্রোটিন, ক্যালসিয়াম, উপকারী ব্যাক্টেরিয়া ও ভিটামিন ডি। যাদের পেটে ল্যাক্টোজ সহ্য হয় না তাঁরা বিকল্প হিসেবে দই খেতে পারেন। কারণ, এটা খুব সহজেই তৈরী করা যায়।

দই কে না পছন্দ করে ? আর সেই পছন্দের খাবারটি যদি হয় অপরিষ্কার অপরিচ্ছন্ন নোংরা পরিবেশে অথবা ভেজাল দুধে তৈরি তাহলে ঐ পছন্দের খাবারটি কি আর খেতে ইচ্ছে করবে? তাই আর নয় এ অপরিষ্কার নোংরা খাবার। কম খরচেই ঘরে বসে খুব সহজেই তৈরি করে নিন মজাদার ফ্রেশ দই।

প্রয়োজনীয় উপকরণঃ

১। দুধ – ২ লিটার (যত লিটার দই প্রয়োজন তার ২গুন অথবা ৪গুন দুধ )

২। চিনি – রুচিমত ( মিষ্টি বেশি পছন্দ করলে চিনি বেশি দিতে হবে )

৩। গুড়ো দুধ – ১ কাপ

৪। ফুড কালার – পরিমানমত

৫। টক দই (Natural Yougart) – দুধের পরিমানের দশভাগের একভাগ যেমন দুধ ১ লিটার নিলে ১০০ গ্রাম, কেউ যদি টক টক দই পছন্দ করে তবে টকদই এর পরিমান বাড়াতে হবে এবং চিনি কম দিতে হবে

৬। ইলেকট্রিক দই মেকার

প্রস্তুত প্রনালিঃ

প্রথমে দুধ কে আগুনে উত্তপ্ত করতে হবে সোজা বাংলায় অল্পআচে জাল দিতে হবে এবং ঘনঘন নাড়তে হবে। দুধের পরিমান দুই অথবা চারভাগের একভাগ (নির্ভর করে আপনি কেমন ঘন দই বানাবেন)। চারভাগের একভাগ করলে দই ঘন হবে আর দুইভাগের এক ভাগ করলে দই পাতলা হবে)। পছন্দ মতন চিনি দিতে হবে। চিনি দেবার সময় একটু বিশেষ নজর রাখতে হবে।কারন চিনি আগে দিলে দুধ নিচে লেগে যায় আর দুধ অনেক ঘন করার পরে চিনি দিলে দুধ আবার পাতলা হয়ে যায়। এই জন্য দুধ কিছু ঘন করার পরে চিনি দিয়ে পুনরায় দুধ ঘন না যাওয়া পর্যন্ত ঘন ঘন নাড়তে হবে। খুবই ভালভাবে লক্ষ রাখতে হবে যেন কোনভাবেই পাতিলে দুধ লেগে না যায় বা সামান্যতম পুড়ে না যায়। কারন দুধ অল্প একটু নিচে লেগে গেলেই বা সামান্যতম পুড়েগেলে যে বিকট পোড়া গন্ধ হয় তা কোন ভাবেই দই থেকে দূর করা সম্ভভ না।

এইভাবে ধীরে ধীরে দুধ অর্ধেকের কম হবার পরে ঘন দুধকে ঠান্ডা করতে হবে। এমনভাবে ঠান্ডা করতে হবে যেন বেশি গরম না থাকে। সবচেয়ে ভাল হয় হাতের তালুতে দুধ রেখে অনুভব করতে হবে যেন ঘনদুধ সামান্যতম গরমও না থাকে। কারন দুধটা ঠান্ডা না হলে টক দই দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ছানাতে পরিনত হবে। এইভাবে ঘনদুধ ঠান্ডা হবার পরে ঘনদুধের সঙ্গে টকদই (Natural Yougart) খুবই ভালভাবে মেশাতে হবে। কেউ যদি মিষ্টিদই পছন্দ না করে টক টক দই পছন্দ করে তবে টক দইয়ের অনুপাত বাড়াতে পারে। খুবই ভালভাবে টকদই ঘনদুধের সঙ্গে মেশানোর পর “ ইলেকট্রিক দই মেকারে” রেখে ঢাকনা বন্ধকরে তিন ঘন্টা সুইচ অন করে রাখতে হবে।

এবার ঘরে বানানো আপনার মজার দই প্রিজে রেখে ঠান্ডা করে পরিবেশন করুন।

সতর্কীকরণঃ

দই পাতার পর মেকারটির ঢাকনা উল্টানো যাবেনা এবং কোনোরুপ নড়াচড়া করা যাবে না।

সাথে পাচ্ছেন ১ বছরের ওয়ারেন্টি।

✔✔ডেলিভারী পদ্ধতি ✔✔

????ঢাকা মহানগরের মধ্যে ২৪ ঘন্টা ও সারা দেশে ডেলিভারি করা হয় ২৪-৭২ ঘন্টায়।

????ডেলিভারি চার্জ: ঢাকা মহানগরের মধ্যে ১২০ টাকা, ঢাকার বাহিরে ১৫০ টাকা।

ঢাকার মধ্যে আমরা ‘ক্যাশ অন’ ডেলিভারি দিয়ে থাকি। ঢাকার বাইরের ক্ষেত্রে অগ্রীম পেমেন্ট প্রযোজ্য। পেমেন্টে বিকাশের মাধ্যমে দেওয়া যাবে।